২০২৩ সালে কতজন নারী নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন ? – Bangla MCQ


প্রশ্ন:  ২০২৩ সালে কতজন নারী নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন ? 

ক.  ৩

খ.  ৪

গ.  ২

ঘ.  ৫

উত্তর:  (খ) ৪ জন । 

ব্যাখ্যা:  

২০২৩ সালে ” ৪ জন ” নারী নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন । 

২০২৩ সালে নোবেল পুরস্কার বিজয়ীদের তালিকায় নারীদের উল্লেখযোগ্য ভূমিকা ছিল। বছরের নোবেল পুরস্কারের মধ্যে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্র – চিকিৎসা, সাহিত্য এবং শান্তিতে নারীরা পুরস্কৃত হন। তাদের কৃতিত্ব, প্রতিভা ও প্রভাব বিশ্বজুড়ে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

প্রথমে, ২০২৩ সালে চিকিৎসা বিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার জয়ী ডঃ ক্যারলিন বার্টোজির কথা উল্লেখ করা জরুরি। তিনি এবং তার গবেষণা দল বায়োঅর্থোগোনাল রসায়নের উপর কাজ করে চিকিৎসা ক্ষেত্রে নতুন দিগন্ত উন্মোচন করেছেন। তাদের গবেষণা ক্যান্সারের মতো মারাত্মক রোগের নির্ণয় এবং চিকিৎসার ক্ষেত্রে যুগান্তকারী প্রভাব ফেলেছে। ডঃ বার্টোজি হলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন প্রখ্যাত কেমিস্ট। তার কাজ চিকিৎসা বিজ্ঞানে নতুন দিক উন্মোচন করেছে এবং ভবিষ্যতে আরও কার্যকর থেরাপির উন্নয়নে সহায়তা করবে।

লেখালেখির ক্ষেত্রে, ২০২৩ সালের সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন ফরাসি লেখিকা আন্নি আর্নো। আর্নোর সাহিত্যকর্মগুলি তার ব্যক্তিগত জীবনের অভিজ্ঞতা এবং স্মৃতিকে কেন্দ্র করে আবর্তিত হয়। তার লেখায় নারীর অধিকার, সামাজিক অসমতা এবং জীবনের বিভিন্ন দিককে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। আর্নোর কাজ বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত হয়েছে এবং বিশ্বব্যাপী পাঠকদের মন জয় করেছে। তার লেখার সরলতা ও গভীরতা তাকে এই সম্মানজনক পুরস্কার এনে দিয়েছে।

২০২৩ সালের শান্তিতে নোবেল পুরস্কার জয়ী ইরানের নারীবাদী কর্মী নার্গেস মোহাম্মদী। তিনি একজন বিশিষ্ট মানবাধিকার আইনজীবী এবং দীর্ঘদিন ধরে ইরানের মানবাধিকার আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত। নার্গেস মোহাম্মদী নারীদের অধিকার এবং বাকস্বাধীনতার জন্য লড়াই করে যাচ্ছেন। তিনি ইরানের কঠোর আইন ও সামাজিক বিধিনিষেধের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন এবং তার সাহসিকতার জন্য আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেয়েছেন। শান্তির জন্য তার সংগ্রাম এবং বলিষ্ঠ ভূমিকা তাকে এই মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কার এনে দিয়েছে।

নারীরা নোবেল পুরস্কার জয় করে কেবল তাদের নিজস্ব ক্ষেত্রেই নয়, পুরো মানবজাতির উন্নয়নে অসামান্য অবদান রাখছেন। ২০২৩ সালের নোবেল পুরস্কার বিজয়ী নারীদের জীবন এবং কাজ আমাদেরকে প্রেরণা যোগায়। তাদের কৃতিত্ব এবং সংগ্রাম আমাদের সমাজের উন্নয়নে ও নারীর ক্ষমতায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। 

তাদের সফলতা আমাদেরকে স্মরণ করিয়ে দেয় যে, নারীদের ক্ষমতায়ন ও সমান সুযোগ নিশ্চিত করা আমাদের সকলের দায়িত্ব। নারীদের প্রতিভা এবং ক্ষমতাকে স্বীকৃতি দেওয়া এবং তাদেরকে উৎসাহিত করা আমাদের ভবিষ্যত উন্নয়নের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। নোবেল পুরস্কার জয়ী এই নারীরা আমাদেরকে দেখিয়েছেন যে, নিষ্ঠা ও পরিশ্রমের মাধ্যমে সমাজে এবং বিশ্বে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আনা সম্ভব।

২০২৩ সালে নোবেল পুরস্কার জয়ী নারীদের এই অসাধারণ কৃতিত্ব এবং তাদের কর্মের প্রভাব দীর্ঘস্থায়ী হবে এবং ভবিষ্যতের প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করবে। তাদের উদাহরণ আমাদের সকলকে সাহস ও অনুপ্রেরণা যোগায়, যাতে আমরা সমাজে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারি।



Source link

Leave a Comment